Thursday, 11 Aug 2016 08:08 ঘণ্টা

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধেও জয়ী হবে বাংলাদেশ’

Share Button

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধেও জয়ী হবে বাংলাদেশ’

প্রথম বাংলা প্রতিনিধি : পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, গুলশান হামলার পর জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে পৃথিবীর সবচেয়ে শক্ত জবাব দিচ্ছে বাংলাদেশ। এ জবাব সরকারের একার নয়, সবার। দেশে এরকম বৃহত্তর ঐক্য আর কখনো গড়ে ওঠেনি। এ ধারা অব্যাহত থাকলে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধেও জয়ী হবে বাংলাদেশ। তবে জঙ্গিবাদ দমনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদেরও দলমত নির্বশেষে এগিয়ে আসতে হবে।রাজশাহী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মাসিক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, জঙ্গি হামলার পর কিছু কিছু জায়গায় শংকা তৈরি হলেও অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েনি। বরং রফতানির ধারা অব্যাহত আছে। রিজার্ভও বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রবৃদ্ধি অর্জনের ক্ষেত্রেও বিশ্বের হাতে গোনা কয়েকটি দেশের মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ।প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্থানীয় প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও বিচার বিভাগকে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। একইসঙ্গে হাটবাজারে নকল প্রসাধনী সামগ্রী বিক্রি রোধসহ জেলায় অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান পরিচালনার অনুরোধ জানান। সেই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী কোন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাস শুরুর আগে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া হয় না, তাদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।সভায় রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, মাদক ব্যবসায়ী ও চোরাকারবারির কোনো ছাড় নেই। কোনো পুলিশ সদস্য যদি এদের কাছ বাড়তি সুবিধা নিয়ে থাকে, উপযুক্ত প্রমাণ পেলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একই সঙ্গে জঙ্গিবাদ রোধে জেলায় মসজিদভিত্তিক জঙ্গি নিরোধ কমিটি গঠন করা হবে।রাজশাহী মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (সদর) তানভীর হায়দার চৌধুরী বলেন, রাজশাহী মহানগরীর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি আগের চেয়ে অনেক উন্নতি হয়েছে। বুধবার রাজশাহী নগরীর কাপাশিয়া এলাকায় দুই বিকাশকর্মীকে গুলি করে টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা সম্পর্কে তিনি বলেন, কোনো প্রতিষ্ঠান যদি বড় অংকের টাকা এক জায়গা থেকে আরেক জায়গা নিয়ে যায় তাহলে অবশ্যই পুলিশকে অবহিত করতে হবে। তারা যদি আমাদের অবহিত করে তাহলে কোনো দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা থাকে না। এছাড়াও একইদিনে বুধপাড়া এলাকায় পুলিশ সদস্যের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তাদের পারিবারিক দ্বন্দ্ব রয়েছে। ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।১ নং বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল শাহজাহান সিরাজ বলেন, সীমান্তে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। ভরা পদ্মায় টহল দেওয়ার জন্য বিজিবি সদস্যদের স্পিডবোট দেওয়া হয়েছে। কোনোভাবেই যেন সীমান্ত গলিয়ে মাদক ও চোরাচালন দ্রব্য বাংলাদেশের প্রবেশ না করতে পারে, সেজন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হচ্ছে। রাজশাহী জেলা প্রশাসক কাজী আশরাফ উদ্দীন-এর সভাপতিত্বে সভায় র‌্যাব-৫ এর কোম্পানি কমান্ডার মোবাশ্বের রহীমসহ আনসার-ভিডিপি, বিভিন্ন উপজেলা চেয়ারম্যান ও প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এই সংবাদটি 1,028 বার পড়া হয়েছে