Sunday, 30 Jul 2017 09:07 ঘণ্টা

দক্ষিণ সুরমায় প্রশাসনের কঠোরতা, তবুও থেমে নেই তীর খেলা

Share Button

দক্ষিণ সুরমায় প্রশাসনের কঠোরতা, তবুও থেমে নেই তীর খেলা

ssssssআবুল হোসেন : ভারতের মেঘালয় রাজ্যের রাজধানী শিলংয়ে ‘তীর কাউন্টার’ নামের অনলাইন লটারিকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে সিলেটে চলে আসছিল জুয়া খেলার মহোসৎসব। তবে সম্প্রতি সময়ে এই জুয়ার বিরুদ্ধে অবস্থান নেয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। যার ফলস্বরূপ অর্ধশতাধিক জুয়ার আসর বন্ধ করে দেয়া হয়। আটক করা হয় এর সাথে সংশ্লিষ্ট মূলহোতাদের বেশ কয়েকজনকেও।
তবে সম্প্রতি নগরীর দক্ষিণ সুরমার মোমিন খলা নেকছান মিয়ার কলোনীতে নেকছান মিয়ার ভাই আলেক ও জীবন এর নেতৃত্বে তীর জুয়া পরিচালনা করে আসছে তারা। ফলে তাদের লোভনীয় ফাঁদে পা দিয়ে সর্বশান্ত হচ্ছেন সেখানকার গরীব দিনমজুর, রিক্সাচালক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন স্থরের লোকেরা।
স্থানীয়রা জানান, মোমিন খলা নেকছান মিয়ার কলোনীতে একটি কক্ষে প্রতিদিনই তীর খেলার নামে বসছে জুয়ার আসর। প্রতিদিন লক্ষাধিক টাকার তীর খেলা চলছে এখানে। ওই এলাকার বেশ কয়েকজন প্রভাবশালীর শেল্ডারে এখানে তীরের মহোৎসব চলায় স্থানীয় লোকজন একাধিকবার বাধা দিয়েও তা বন্ধ করতে পারছেন না।
উল্লেখ্য ঃ গত ১০ জুলাই সোমবার বিকাল সাড়ে ৪ টায় দক্ষিণ সুরমার মোমিন খলা নেকছান মিয়ার কলোনী থেকে তীর জুয়ার সাথে জড়িত মুল হোতাকে জীবন আহমদকে (২৫) আটক করা হয়।
এসময় স্থানীয়রা জানান, আটক জুয়াড়ির জীবন আহমদ দীর্ঘ দিন থেকে দক্ষিণ সুরমার মোমিন খলা নেকছান মিয়ার কলোনীতে জীবন আহমদ তীর জুয়া পরিচালনা করে আসছিল। স্থানীয়রা আরো জানান দক্ষিণ সুরমার তীর খেলার অন্যতম মূল হোতা জীবন আহমদকে গ্রেফতার করা হলেও ধরা ছোয়ার বাহিরে রয়ে গেছে ,টিপু নামক জুয়াড়ি, এই প্রতারক চক্র দীর্ঘদিন থেকে এই তীর খেলা পরিচালনা করে আসছে। তাদের নিয়ন্ত্রনে দক্ষিন সুরমার প্রশাসন যদি নিয়মিত ওই সব চিহ্নিত জুয়ার আসরে অভিযান চালায় এবং তীর জুয়ার সাথে জড়িতদের আটক করে আইনের আওতায় নিয়ে আসে এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করে তাহলে তীর জুয়া নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব।
এব্যাপারে দক্ষিন সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুন অর রশীদ বলেন তীর খেলা বন্ধে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি। বিস্তারিত আসছে————–

এই সংবাদটি 1,008 বার পড়া হয়েছে